news-details
politics

সরস্বতী পুজো শেষ হয়ে শুরু মাধ্যমিক,  ঘরে ফেরেনি রাজীব , চাপে নবান্ন, এবার অর্নব 

 

নিজস্ব সংবাদদাতা,১২ই ফেব্রুয়ারি : 'আনলাকি থার্টিন' মালদহ পুলিশ সুপারের কাছে 'লাকি'ই কারন আদালতের নির্দেশ অনুসারে ১৩ফেব্রুয়ারি অবধি তাঁকে জেরা করতে পারবেনা সিবিআই । সেই ১৩ফেব্রুয়ারি পেরুতে চলেছে আগামী ৪৮ঘন্টার পরেই । আর তারপরই কি তাঁকেও টানতে চলেছে সিবিআই ? সম্ভবত তাই । 

মাধ্যমিক পরীক্ষার ঠিক আগের দিন অথবা সরস্বতী পুজোর পরের দিন মালদহের পুলিশ সুপার অর্নব ঘোষের ঘাড়েই 'সিট' য়ের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার । সিবিআইকে রাজীব কুমার জানিয়েছেন, তিনি 'সিট' এর সদস্য ছিলেন বটে তবে সেই সময় বিধাননগর কমিশনার থাকায় 'সিট' য়ের সব কিছু দেখা সম্ভব হতনা , মুলত অর্নবই সব দেখতেন ।  

রাজীব আরও একটা কথা স্বীকার করে নিয়েছেন যে ঠিক যে ভাবে সিটের তদন্ত চলা উচিৎ ছিল সেভাবে চলেনি । কেন চলেনি ? তার উত্তরে রাজীব বলেন, সময়ের অভাব তার মধ্যেই তদন্তের দায়িত্ব নেয় সিবিআই । 

অন্যদিকে সিবিআইয়ের দাবী,  আসলে তা নয়। তদন্তের পদে পদে প্রভাবশালী তৃনমূল নেতাদের অস্থিত্ব পাওয়ার পরেই তা এড়িয়ে কাজ করতে গিয়ে তদন্ত শ্লথ হয়ে যায় আর শেষ দিকে যখন রাজ্যসরকার যখন প্রায় নিশ্চিত হয়ে যায় যে, সিবিআইয়ের হাতেই তদন্ত চলে যাচ্ছে তখন মরিয়া 'সিট' নেতাদের বাঁচাতে তথ্য ধ্বংসের বা লোপাটের কাজ শুরু করে । সেই পর্বেরই নজির বিহীন অভিযান অর্নব ঘোষের । মাঝরাতে এক ব্যাঙ্ক ম্যনেজারকে ঘুম থেকে তুলে অভিযান চালানো হয় সুদীপ্ত সেন ও তাঁর স্ত্রী পিয়ালীর লকারে। নিয়ে আসা হয় বেশ কিছু নথি । সেই নথি এখনও সিবিআইয়ের হাতে আসেনি ।  

সুপ্রিম কোর্টে সিবিআই জানিয়েছিল সারদা মামলা সংক্রান্ত নথি নষ্ট করেছে কলকাতা পুলিশ কমিশনার । আদালত বলেছেন সেই প্রমান দিতে বলাবাহুল্য রাজীবের পাশাপাশি সেই প্রমানের জন্য অর্নবকেও দরকার সিবিআইয়ের । আগামী ২০শে ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্টে শুনানি, তার আগেই বেশ কিছু প্রমান সংগ্রহ করতে হবে সিবিআইকে । প্রমান তাদের হাতে আছে শুধু সিটের সদস্যদের জবানবন্দিতে তাকে আরও প্রামানিক করে তুলতে চায় সিবিআই । আর সেই জন্য অর্নবের পাশাপাশি আরও কার ডাক পড়ে সেই নিয়ে চাপে নবান্ন ।

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.