news-details
State

স্বামীর বিরুদ্ধেই ধর্ষনের মামলা গৃহবধূর , নজির বিহীন ঘটনা বলে দাবী আইনবিদদের 

 

নিজস্ব সংবাদদাতা, ০৬ ডিসেম্বর :  কলকাতার এক গৃহবধূ তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধেই ধর্ষনের মামলা দায়ের করেছেন । আইনবিদদের মতে এটি শুধুই একটি  বিরলতম ঘটনা নয় বরং সম্ভবত প্রথম ঘটনা যেখানে স্বামীর বিরুদ্ধেই স্ত্রী ধর্ষনের মামলা এনেছে । 
প্রখ্যাত নারীবাদী সংস্থাগুলি তথা নারী অধিকার রক্ষা সংক্রান্ত যে সব সংগঠন গুলি কাজ করে থাকেন এবং ধর্ষনের মামলা সংক্রান্ত ভারতীয় আইনে কিছু সংশোধন দাবী করে থাকেন  তাঁদের মতে ,  এই ধরনের অভিযোগের ক্ষেত্রে পুলিশ সাধারণ ভাবে গার্হস্থ্য হিংসা আইন কিংবা পনপ্রথা বিরোধী মামলা রুজু করে মামলাটিকে লঘু করে দেয় । তাই বিবাহ পরবর্তী ধর্ষন সংক্রান্ত আইন প্রনয়ন বা মূল ধর্ষন আইনে সংশোধন আনা উচিৎ ।  এ
 পুলিশ সূত্রে জানা গেছে উত্তর কলকাতার সিঁথি এলাকার ওই মহিলা দাবী করেছেন , তাঁর স্বামী তাঁকে লাগাতার শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে যাচ্ছেন এমনকি সন্তানসম্ভবা হওয়ার পরেও রেহাই দেওয়া হয়নি তাঁকে । 
গৃহবধূর অভিযোগ বিয়ের পূর্বে ওই গৃহবধূর বাপের বাড়িকে তাঁর স্বামী জানান যে , সে একটি প্রাইভেট ব্যাঙ্কের উচ্চপদস্থ আধিকারিক কিন্তু বিয়ের পর তিনি জানতে পারেন যে তাঁর স্বামী একটি ছোটো বেসরকারি ফার্মের নিম্নপদে বহাল রয়েছেন । কিছুদিন পরেই সেই কাজেও যাওয়া বন্ধ করে দেন । এরপরেই ওই গৃহবধূ স্বামীকে এড়ানো শুরু করলে তাঁর স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাঁর ওপর নির্যাতন শুরু করে ।  তাঁর  স্বামী  তাঁর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে যায় এবং তাঁর  ইচ্ছার বিরুদ্ধেই তাঁকে যৌন সংঘর্ষে বাধ্য করে । এমনকি স্ত্রী সন্তানসম্ভবা জানা স্বত্তেও এই ঘটনা চলতে থাকে । 
পুলিশকে  ওই গৃহবধূ জানান , কোনও উপায় না থাকায় বাধ্য হয়েই তিনি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন । 
  গৃহবধূর পাশে দাঁড়িয়ে একটি নারী অধিকার রক্ষা সংস্থার প্রধান অনুরাধা কাপুর জানিয়েছেন ,  সাধারন ভাবে ধর্ষন বলতে বোঝায় কারও ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার সাথে যৌন সংঘর্ষ করা কিন্তু বিবাহের পরে এই সংজ্ঞা নিয়ে জটিলতা তৈরী হয় । বিবাহপরবর্তী কালেও যে স্ত্রীর অনুমতি স্বপেক্ষেই যৌন সংঘর্ষ বাঞ্ছনীয় এটা সম্পর্কে অনেকেই সচেতন নয় আর মহিলাদের আপত্তি গ্রাহ্যই হয়না প্রায় । এখানে আইনের কিছু ফাঁক থাকায় অভিযুক্ত সেই সু্যোগ নেয় । আমরা তাই ধর্ষন সংক্রান্ত আইনের সংশোধনী চাই যাতে বৈবাহিক ধর্ষনও অপরাধের আওতায় সহজে আসতে পারে । 
  আরেক মহিলা অধিকার কর্মী স্বাতী ঘোষ বলেছেন , এই গৃহবধূকে ধন্যবাদ জানাতেই হয় কারন উনি স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ এনে যে সাহসের পরিচয় দিয়েছেন তা বিরল এবং নজির বিহীন । 
  পুলিশ অবশ্য এখুনি এ নিয়ে কোনও চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি । পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন , এটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর ও জটিল বিষয় । আমরা অভিজ্ঞ আইনজ্ঞদের সাথে পরামর্শ করেই ব্যবস্থা নেব ।

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.