Top Stories
  1. বাড়ি এলেও কথা বললেন না যোগীঃ মুখ্যমন্ত্রী এড়িয়ে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ শহীদের স্ত্রী
  2. কলকাতার নতুন পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা 
  3. সাংসদ হিসাবে পাওয়া ৩ মাসের বেতন সেনা তহবিলে দান করলেন যুব তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।
  4. চলে গেলেন সঙ্গীতশিল্পী প্রতীক চৌধুরী
  5. বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ উত্তরবঙ্গের শিল্পপতিদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিলেন।
  6. পথ দুর্ঘটনায় মৃত দুই
  7. যেকোনো মুহূর্তে ফের পুলওয়ামা হামলার মতো ঘটনা ঘটাতে পারে জইশ-ই-মহম্মদ
  8. ফের প্রমাণ দিল সেই কাশ্মীর,তবে নাশকতায় নয়,সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে চেয়ে পরীক্ষা দিলেন ২৫০০ কাশ্মীরি যুবক।
  9. স্থায়ী ফুল বাজারের দাবি তুলল শিলিগুড়ি হর্টিকালচারাল সোসাইটি
  10. গুজবের জের। এক যুবককে গাছে বেধে মারধোর গ্রামবাসিদের
news-details
State

স্বামীর বিরুদ্ধেই ধর্ষনের মামলা গৃহবধূর , নজির বিহীন ঘটনা বলে দাবী আইনবিদদের 

 

নিজস্ব সংবাদদাতা, ০৬ ডিসেম্বর :  কলকাতার এক গৃহবধূ তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধেই ধর্ষনের মামলা দায়ের করেছেন । আইনবিদদের মতে এটি শুধুই একটি  বিরলতম ঘটনা নয় বরং সম্ভবত প্রথম ঘটনা যেখানে স্বামীর বিরুদ্ধেই স্ত্রী ধর্ষনের মামলা এনেছে । 
প্রখ্যাত নারীবাদী সংস্থাগুলি তথা নারী অধিকার রক্ষা সংক্রান্ত যে সব সংগঠন গুলি কাজ করে থাকেন এবং ধর্ষনের মামলা সংক্রান্ত ভারতীয় আইনে কিছু সংশোধন দাবী করে থাকেন  তাঁদের মতে ,  এই ধরনের অভিযোগের ক্ষেত্রে পুলিশ সাধারণ ভাবে গার্হস্থ্য হিংসা আইন কিংবা পনপ্রথা বিরোধী মামলা রুজু করে মামলাটিকে লঘু করে দেয় । তাই বিবাহ পরবর্তী ধর্ষন সংক্রান্ত আইন প্রনয়ন বা মূল ধর্ষন আইনে সংশোধন আনা উচিৎ ।  এ
 পুলিশ সূত্রে জানা গেছে উত্তর কলকাতার সিঁথি এলাকার ওই মহিলা দাবী করেছেন , তাঁর স্বামী তাঁকে লাগাতার শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে যাচ্ছেন এমনকি সন্তানসম্ভবা হওয়ার পরেও রেহাই দেওয়া হয়নি তাঁকে । 
গৃহবধূর অভিযোগ বিয়ের পূর্বে ওই গৃহবধূর বাপের বাড়িকে তাঁর স্বামী জানান যে , সে একটি প্রাইভেট ব্যাঙ্কের উচ্চপদস্থ আধিকারিক কিন্তু বিয়ের পর তিনি জানতে পারেন যে তাঁর স্বামী একটি ছোটো বেসরকারি ফার্মের নিম্নপদে বহাল রয়েছেন । কিছুদিন পরেই সেই কাজেও যাওয়া বন্ধ করে দেন । এরপরেই ওই গৃহবধূ স্বামীকে এড়ানো শুরু করলে তাঁর স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাঁর ওপর নির্যাতন শুরু করে ।  তাঁর  স্বামী  তাঁর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে যায় এবং তাঁর  ইচ্ছার বিরুদ্ধেই তাঁকে যৌন সংঘর্ষে বাধ্য করে । এমনকি স্ত্রী সন্তানসম্ভবা জানা স্বত্তেও এই ঘটনা চলতে থাকে । 
পুলিশকে  ওই গৃহবধূ জানান , কোনও উপায় না থাকায় বাধ্য হয়েই তিনি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন । 
  গৃহবধূর পাশে দাঁড়িয়ে একটি নারী অধিকার রক্ষা সংস্থার প্রধান অনুরাধা কাপুর জানিয়েছেন ,  সাধারন ভাবে ধর্ষন বলতে বোঝায় কারও ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার সাথে যৌন সংঘর্ষ করা কিন্তু বিবাহের পরে এই সংজ্ঞা নিয়ে জটিলতা তৈরী হয় । বিবাহপরবর্তী কালেও যে স্ত্রীর অনুমতি স্বপেক্ষেই যৌন সংঘর্ষ বাঞ্ছনীয় এটা সম্পর্কে অনেকেই সচেতন নয় আর মহিলাদের আপত্তি গ্রাহ্যই হয়না প্রায় । এখানে আইনের কিছু ফাঁক থাকায় অভিযুক্ত সেই সু্যোগ নেয় । আমরা তাই ধর্ষন সংক্রান্ত আইনের সংশোধনী চাই যাতে বৈবাহিক ধর্ষনও অপরাধের আওতায় সহজে আসতে পারে । 
  আরেক মহিলা অধিকার কর্মী স্বাতী ঘোষ বলেছেন , এই গৃহবধূকে ধন্যবাদ জানাতেই হয় কারন উনি স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ এনে যে সাহসের পরিচয় দিয়েছেন তা বিরল এবং নজির বিহীন । 
  পুলিশ অবশ্য এখুনি এ নিয়ে কোনও চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি । পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন , এটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর ও জটিল বিষয় । আমরা অভিজ্ঞ আইনজ্ঞদের সাথে পরামর্শ করেই ব্যবস্থা নেব ।

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.