Breaking News

মা এর মরণোত্তর দেহদান করে অনন্য নজির স্থাপন করলেন এক শিক্ষক

Image
 

নিজস্ব সংবাদদাতা,২০ ফেব্রুয়ারি:- মা এর মরণোত্তর দেহদান করে এক অনন্য নজির স্থাপন করলেন কুসুমন্ডির  বেরোল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিশিষ্ট শিক্ষক তথা দক্ষিণ দিনাজপুরের খ্যাতনামা বাচিক শিল্পী বিভাস দাস। মূলত বিভাস বাবু তার মায়ের ইচ্ছাকে মর্যাদা দিতেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সর্ব প্রথম এমন দেহদানের নজির করলেন ।

বালুরঘাট শহরের অবিবাহিত  শিক্ষক বিভাস বাবু ও তার মা অঞ্জলি দেবী ছিলেন চলার পথে একে ওপরের পরিপূরক। স্বাভাবিক ভাবেই মায়ের মৃত্যুতে তিনি নিঃসঙ্গ হয়ে পড়লেন। তবুও ভারাক্রান্ত মনে মায়ের ইচ্ছাকে  মর্যাদা দিতে, মনকে শক্ত করে তিনি তার  মৃত মায়ের মরণোত্তর  চক্ষুদান করেন “প্রয়াস আত্রেয়ী” নামক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় এবং তিনি নিজে বালুরঘাট থেকে তার স্বর্গীয় মায়ের মৃতদেহ নিয়ে যান মালদা মেডিকেল কলেজে ও হাসপাতালে মরণোত্তর দেহ দানের জন্য ।  বিভাস বাবু জানান, ২০১১ সালে তার মা  মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার  করেছিলেন । পরবর্তীতে ২০১৩ সালে বিভাস বাবু ও তার মা  মরণোত্তর দেহদান এর অঙ্গিকার করেন।
 বিভাস বাবু আমাদের জানান , মৃত্যুর পর এই দেহ মৃত ব্যক্তির কোনো কাজে লাগে না ,চিরাচরিত রীতিনীতির উর্ধে না উঠলে মেডিক্যাল সায়েন্স এর উন্নতি ঘটবে কি করে। আমাদের নিথর দেহ ও তার অঙ্গ প্রত্যঙ্গগুলি লোকাচারের অজুহাতে পুড়িয়ে দিয়ে বা কবরে শায়িত করে আখেরে লাভ কি ? কিন্তু যদি আমরা এই বেড়াজালের উর্ধে উঠতে পাড়ি তবে কত লোকের উপকারে আসা যেতে পারে।

Share With:


Leave a Comment

  

Other related news