Breaking News

আশা রাখি ভারত উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে, সিএএ প্রসঙ্গে বললেন ট্রাম্প

Image
 

নিজস্ব সংবাদদাতা,২৬ ফেব্রুয়ারি: সিএএ নিয়ে উত্তাল রাজধানী দিল্লি। এই আবহেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একটা গোটা দিন কাটালেন দিল্লিতেই। ট্রাম্প যখন দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তিতে স্বাক্ষর করছেন তখন বাইরে জ্বলছে দিল্লি। এই আবহে অনেকেই ভেবেছিলেন ট্রাম্প হয়তো সিএএ প্রসঙ্গে মুখ খুলবেন। কিন্তু তিনি এই প্রসঙ্গে আগ বাড়িয়ে কিছুই বললেন না। বরং এই ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী মোদির পাশেই দাঁড়ালেন। উল্টে তাঁর কথায়, ‘মোদী বলেছেন, তাঁরা চান যে ভারতীয় ধর্মীয় স্বাধীনতা থাকুক। মোদীকে অনেকের সামনে জিজ্ঞাসা করেছি আমি। তাঁরা এটা নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করেছে। আমি ব্যক্তিগত আক্রমণের বিষয়ে শুনেছি। কিন্তু আমি এটা নিয়ে আলোচনা করিনি। এটা ভারতের উপর ছেড়ে দিচ্ছি’। পাশাপাশি তিনি এও বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী কঠোর হতে পারেন। কিন্তু তিনি অত্যন্ত ভালো মানুষ।

ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়েও মুখ খোলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আলোচনা হয়নি। তবে আশা রাখি, এই বিষয়ে ভারত উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে। কারণ নরেন্দ্র মোদি ও আমি দুজনেই অন্যের ধর্মীয় স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি। মোদি আমাকে জানিয়েছেন, তিনি চান যে তাঁর দেশের সমস্ত মানুষ কোনও ভয় ছাড়াই ধর্মীয় স্বাধীনতা ভোগ করুন। ওরা এই বিষয়ে যথেষ্ট কাজও করেছে। তবে কারও কারও উপর ব্যক্তিগত আক্রমণের কথা শুনেছি। তবে এটা সম্পূর্ণভাবে ভারতের অভ্যন্তরীণ ও ব্যক্তিগত বিষয়। তাই এটা তাদের উপরই ছেড়ে দিতে চাই। আশাকরি ভারত সরকার দেশের জনগণের জন্য সঠিক সিদ্ধান্তই নেবে। নরেন্দ্র মোদি একজন অসাধারণ নেতা। মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতা রক্ষার জন্য তিনি অনেক লড়াই করছেন। দুই দিনের ভারত সফরের শেষ পর্বে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাইসিনা হিলসে পৌঁছান আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ তাঁদের সম্মানে নৈশভোজের আয়োজন করেছেন। এখান থেকেই তাঁরা ওয়াশিংটনের উদ্দেশ্যে উড়ে যাবেন।

Share With:


Leave a Comment

  

Other related news