news-details
State

শ্যালিকাকে খুন করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হল জমাইবাবুর 

 


সৌতিক চক্রবর্তী, বীরভূম, ০৬ ডিসেম্বর : শ্যালিকাকে খুন করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হল জমাইবাবুর ও তার এক বন্ধুর। 


জানা গেছে যে, ২০১৫ সালের ২০ অগস্ট সন্ধ্যাবেলা একটা অশান্তির কারণে নজরুল তার স্ত্রী শাবানকে মারতে যায়। কিন্তু মারতে যাওয়ার সময় ভুল করে গুলি লাগে শাবানার ছোটো বোন টুনির মাথায়। এর ফলে ঘটনাস্থলে সঙ্গে সঙ্গে মারা যান টুনি খাতুন। এই ঘটনার সাত দিনের মাথায় রামপুরহাট রেলপাড়ের বাসিন্দা নজরুল ও তার বন্ধুক সন্দীপন মাহারাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বুধবার এই ঘটনায় বীরভূম জেলার সিউড়ি তৃতীয় দায়রা ও  জেলা আদালতের বিচারক এই ঘটনাটির রায়ের কথা ঘোষণা করেন। যা শুনবার মাত্রই আনন্দে আত্মহারা হয়ে যায় নিহত যুবতির মা ও দিদি। বীরভূম জেলার সিউড়ি আদালতের বিচারক মুকুল কুমার কুণ্ডু এই ঘটনাটির রায় দেন। তিনি বলেন, "জামাইবাবু নজরুল ইসলাম ও তারই বন্ধু সন্দীপন মাহারাকে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।এবং ভারতীয় দণ্ডবিধির ২০১/৩৪ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। এছাড়াও নিহত টুনি খাতুনের জামাইবাবু নজরুলকে ২৫ এবং ২৭ অস্ত্র আইনে তিন বছর করে জেল এবং ১ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে ও অনাদায়ে এক মাসের জেলে থাকার সাজা ঘোষণাও করা হয়েছে।এছাড়া যাবজ্জীবন সশ্রম  কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা সহ অনাদায়ে আরও এক বছরের জেল। পাশাপাশি ভারতীয় দণ্ডবিধির ২০১ / ৩৪ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে", বলে জানান। শাবানা খাতুন ও তাঁর মা নূরজাহান বিবি বলেন, "আদালত যে রায় দিয়েছে সেই রায়ে আমরা খুব খুশি হলাম। এই ঘটনায় সঠিক বিচার হয়েছে।"

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.