Breaking News

সমস্ত বরাদ্দ ডিএ মেটানো হয়েছে, ঘোষনা মুখ্যমন্ত্রীর!

Image
 

নিউজ ডেস্ক, ১৫ ফেব্রুয়ারিঃ বেতন কমিশনের সুপারিশ কার্যকর করেছি। বাকিটা সুপারিশেই বলা রয়েছে। যতটুকু পেরেছি, দেওয়া হয়েছে। নেতিবাচক চিন্তা করবেন না,রাজ্যের কথা ভাবুন, ইতিবাচক চিন্তা করুন।রাজ্য বাজেট পেশ করার পর বিধানসভায় সাংবাদিকদের মুখােমুখি হয়ে নিজের অবস্থান জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
এবার বাজেট আলােচনার প্রশ্নত্তোর পর্বে ফের বেতন কমিশন ও মহার্ঘভাতা প্রসঙ্গে জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তার সরকার কর্মচারীদের কত
শতাংশ বকেয়া মহার্ঘ ভাতা মিটিয়েছে।চলতি অর্থবছরে নতুন বেতন কাঠামাে অনুসারে বেতন হাতে পেলেও পে স্লিপে ডিএ'র উল্লেখ না
থাকায় সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়।এরপর রাজ্য বাজেটেও এনিয়ে পৃথক কোনও প্রস্তাব না পেয়ে কর্মীমহলে হতাশা আরও বাড়ে। একদিকে পে স্লিপ থেকে ডিএ শব্দ উধাও হওয়ার ঘটনা ও বকেয়া নিয়ে স্যাটে মামলা রায় ঘােষণার
পরও তা কার্যকর না হওয়ায় ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে। আদালত অবমাননা, পাল্টা রায় পুনর্বিবেচনা মামলাও চলছে স্যাটে।।
গতকালও ছিল সেই জোড়া মামলার শুনানি। স্বাভাবিক মহার্ঘ ভাতার ভবিষ্যৎ নিয়ে বেশ চিন্তায় কর্মচারী মহল।
এবার কর্মচারী মহলে জল্পনায় জল ঢেলে আজ
বিধানসভায় নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, আগে ৯০% মহার্ঘ ভাতা বকেয়া ছিল। সব শােধ করে
দিয়েছি। রাজ্যে ষষ্ঠ বেতন কমিশন চালু হয়েছে। বর্ধিত বেতনও পেয়েছেন কর্মচারীরা। টাকা নেই, তাও আস্তে আস্তে সব দিয়ে দেব। বাজেট আলােচনার প্রশ্নোত্তর পর্বে বেতন কমিশন ও মহার্ঘ
ভাতা নিয়ে বিধানসভায় মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। যদিও, মহার্ঘ ভাতার বরাদ্দ 'শূন্য' নিয়ে ক্ষোভে ফুসছে কর্মচারী মহল। তথ্য তুলে ধরে কনফেডারেশন অব স্টেট গভমেন্ট এমপ্লয়িজের সাধারণ সম্পাদক জানান ''২০২০-২০২১ বাজেটে মহার্ঘভাতার কলমে ডট
ডট ডট এই ঔদ্ধত্য ভেঙে চুড়মার করে দেওয়ার ক্ষমতা একমাত্র সরকারি তহবিল থেকে বেতন পাওয়া কর্মচারীদেরই আছে। বন্ধুরা আগামীদিনে এই আমাদের এই কথাটা মনে রাখতে হবে।''

Share With:


Leave a Comment

  

Other related news