Breaking News

এনআরসি,এনপিএ সহ সিএএ নিয়ে ফের একবার বিজেপিকে একহাত নিলো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Image
 

শিলিগুড়ি,২০জানুয়ারীঃ এনআরসি,এনপিএ সহ সিএএ নিয়ে ফের একবার বিজেপিকে একহাত নিলো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সোমবার শিবমন্দিরে উত্তরবঙ্গ উৎসব এর সূচনা মঞ্চ থেকে তিনি বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন।এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এনআরসি, এনপএদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এনআরসি, এনপিআর আর সিএএ নিয়ে কেউ চিন্তা করবেন না। আমি আছি। আমি আছি মানেই বাংলার মানুষ আপনাদের পাশে আছে। কেউ গায়ে হাত দিতে পারবে না।” সেইসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি ভোটের পাহারাদার নই। সারাবছর মানুষের পাশে থাকি।”

এনপিআর প্রসঙ্গে এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি আগে ভেবেছিলাম এটা বোধহয় জনগণনা (সেনসাস)। তারপর দেখি বাবা-মায়ের জন্ম তারিখ জানতে চাইছে। তখন আমি বলি আমি এসব করতে দেব না। ওরা এনপিআর করে এনআরসি করতে চাইছে।” বাংলাই একমাত্র রাজ্য যারা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ডাকা এনপিআর বৈঠকে যায়নি। অনেক অবিজেপি রাজ্যই সেই বৈঠকে যোগ দিয়েছিল। তা নিয়েও ক্ষোভ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন তিনি বলেন, “অনেকে দেখলাম মিটিং-এ চলে গেলেন। কিন্তু আমি যাইনি। কারণ আমি বিশ্বাস করি, ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে, তবে একলা চলো রে’।” সেই বৈঠকের পর নাকি অনেকে বলেছেন, কেন্দ্র জানিয়েছে বাবা-মায়ের জন্মতারিখ না দিলেও চলবে। কিন্তু সে কথা যে তিনি বিশ্বাস করেন না তাও স্পষ্ট করে দেন মমতা। বলেন, “পরীক্ষায় কেউ যদি একটা পরীক্ষা না দেয় তাহলে মার্কশিট অসম্পূর্ণ আসে। এসব কথা বুঝব না। আগে ওই কলম প্রত্যাহার হবে তারপর দেখা যাবে।”িআর আর সিএএ নিয়ে কেউ চিন্তা করবেন না। আমি আছি। আমি আছি মানেই বাংলার মানুষ আপনাদের পাশে আছে। কেউ গায়ে হাত দিতে পারবে না।” সেইসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি ভোটের পাহারাদার নই। সারাবছর মানুষের পাশে থাকি।”

এনপিআর প্রসঙ্গে এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি আগে ভেবেছিলাম এটা বোধহয় জনগণনা (সেনসাস)। তারপর দেখি বাবা-মায়ের জন্ম তারিখ জানতে চাইছে। তখন আমি বলি আমি এসব করতে দেব না। ওরা এনপিআর করে এনআরসি করতে চাইছে।” বাংলাই একমাত্র রাজ্য যারা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ডাকা এনপিআর বৈঠকে যায়নি। অনেক অবিজেপি রাজ্যই সেই বৈঠকে যোগ দিয়েছিল। তা নিয়েও ক্ষোভ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন তিনি বলেন, “অনেকে দেখলাম মিটিং-এ চলে গেলেন। কিন্তু আমি যাইনি। কারণ আমি বিশ্বাস করি, ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে, তবে একলা চলো রে’।” সেই বৈঠকের পর নাকি অনেকে বলেছেন, কেন্দ্র জানিয়েছে বাবা-মায়ের জন্মতারিখ না দিলেও চলবে। কিন্তু সে কথা যে তিনি বিশ্বাস করেন না তাও স্পষ্ট করে দেন মমতা। বলেন, “পরীক্ষায় কেউ যদি একটা পরীক্ষা না দেয় তাহলে মার্কশিট অসম্পূর্ণ আসে। এসব কথা বুঝব না। আগে ওই কলম প্রত্যাহার হবে তারপর দেখা যাবে।”

Share With:


Leave a Comment

  

Other related news