Breaking News

প্রশাসনকে অনুরোধ লাঠিচার্জ করার আগে জানুন উনি কি কারণে বাড়ীর বাইরে...লিখেছেন ড: পার্থ পন্ডিত

Image
 

প্রশাসনকে অনুরোধ লাঠিচার্জ করার আগে জানুন উনি কি কারণে বাইরে বেরিয়েছেন....লিখেছেন ড: পার্থ পন্ডিত

 

নিউজ ডেস্ক,২৫ মার্চ:বুধবার দেশে নোভেল করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৬০৬ ছাড়িয়ে গেল। এ দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত দেশে ৬০৬ জন কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মঙ্গলবার পর্যন্ত এই সংখ্যাটা ছিল ৫১৯। অর্থাৎ আজ সারা দিনে দেশ জুড়ে ৮৭ জন নোভেল করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, এক দিনে আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

এখনও পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, এ মাসের প্রথম সপ্তাহে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৩৪। দ্বিতীয় সপ্তাহে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১০২ জনে। তৃতীয় সপ্তাহ, অর্থাৎ গত ২১ মার্চ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা এসে ঠেকে ৩১৫-তে। তার পর এক সপ্তাহও কাটেনি। তার আগেই আক্রান্তের সংখ্যা ৬০০ পার হয়ে গেল।

এই মুহূর্তে দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এখনও পর্যন্ত সেখানে মোট ১২৮ জন কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, যার মধ্যে আজ সারাদিনেই সেখানে নতুন করে ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ দিন কেরলে নতুন করে ১৪ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলেছে। কর্নাটক, গুজরাত, উত্তরপ্রদেশ এবং রাজস্থানে এ দিন যথাক্রমে ৪, ৫, ৪ এবং ৪ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলেছে।
 দেশে আক্রান্ত ছাড়াল ৬০৬, মৃত বেড়ে ১৫, পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্ত ১০।

এ দিন রাজধানী দিল্লিতে এক জন, তামিলনাড়ুতে ৩ জন, মধ্যপ্রদেশে ৭ জন। অন্ধ্রপ্রদেশে এক জন, জম্মু-কাশ্মীরে ৩ জন, বিহারে এক জন এবং মিজোরামে এক জন আক্রান্ত হয়েছেন।

মঙ্গলবার রাত থেকে দেশ জুড়ে ২১ দিনব্যাপী লকডাউনের ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এমন পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষকে বাড়ির বাইরে বেরতে নিষেধ করেছেন তিনি। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত দেশে ১৫ জন প্রাণ হারিয়েছেন।
এই লকডাউনে যে চিত্র সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রমাগত ভাইরাল হচ্ছে তা জনগণের কাছে আক্ষেপের,ও নিন্দনীয়।
প্রশাসন কে অনুরোধ  লাঠিচার্জ করার আগে জানুন উনি কি কারনে বাইরে বেরিয়েছেন।
আপনারা ভালো কাজ করছেন কিন্তু যারা সমাজের জন্য বাইরে বের হয়েছেন, যারা সরকারি দায়িত্বকর্তব্য পালনের জন্য বেরিয়েছেন তারাও আপনার মত কর্তব্য পালন করছেন,সুতরাং সঠিক টা জেনে পদক্ষেপ নিন। রাস্তায় লোকজন দেখলেই পেটানোর অনুমতি দেওয়া হয়নি। নিজের রাগ মেটানোর জন্য কাউকে লাঠি পেটা করবেন না। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট ভাষায় প্রকাশ করেছেন আইন, আপনারা অনুগ্ৰহ পূর্বক আইনের ব্যভিচার করবেন না।কি কি কারনে পুলিশকর্মী ও সিভিক ভলেন্টিয়ার্স অ্যাকশন নিতে পারেন সেটার সদ্ব্যবহার করুন। এইভাবে জনসাধারণের মধ্যে ত্রাস তৈরী করবেন না। কিছু জায়গায় পুলিশকর্মীরা যথেষ্ট মানবিকতার পরিচয় দিয়ে অবস্থার নিয়ন্ত্রণ করছেন, কিন্তু কিছু দৃশ্য তার ঠিক উল্টো।অনুগ্ৰহ পূর্বক মানবিকতার সাথে কর্তব্য পালন করুন। কর্তব্যরত ব্যক্তি দের সাহায্য করুন।
জনগণের উদ্যেশ্যে বিনীত অনুরোধ আপনারা ২১দিন ঘরবন্দী থাকুন সকলে, নিজের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে।
আমি একজন বায়োলজি গৃহশিক্ষক,তাই সকল গৃহশিক্ষক দের কাছে অনুরোধ আপনারা অনুগ্ৰহ পূর্বক ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত প্রাইভেট টিউশনি বন্ধ রাখুন।
নিত্যপণ্যের জন্য বাজারে গিয়ে গাদাগাদি করবেন না। দূরত্ব বজায় রাখাই আমাদের বাঁচিয়ে রাখতে পারে।
নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য প্রয়োজনের বেশি ক্রয় করে অযথা সংকট বারাবেন না।অসাধু ব্যবসায়ীদের সুযোগ করে দিবেন না। প্রয়োজনে প্রতিবাদ করুন।
সকলে মিলে এই মহামারীর বিরুদ্ধে ব্রতী হন, সুদিন অবশ্যই ফিরে আসবে।
সকলে ঘরে থাকুন,সুস্থ থাকুন।

ডঃ পার্থ পন্ডিত

Share With:


Leave a Comment

  

Other related news