Top Stories
  1. নদীয়ায় লোকসভা ভোটের আগেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ নোডাল অফিসার অর্ণব রায়
  2. দার্জিলিংয়ে ১৯ শে মে নির্বাচন ঘোষনা করল কমিশন
  3. গৃহবধূর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য
  4. 'ষাণ্ড কি আঁখ' সিনেমার শ্যুটিং করতে গিয়ে ভুমির চামড়া পুড়ে যাওয়ার ছবি সোসশাল মিডিয়ায়
  5. বিয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ৭ বছরের বাচ্চাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল এক যুবকের বিরুদ্ধে।
  6. সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হলো ভূমি পেডনেকারের চামড়া পুড়ে যাওয়া ছবি!
  7. সল্টলেকে গভীর রাতে চললো দুষ্কৃতী তান্ডব, ভাঙা হয়েছে পাইপ লাইন!
  8. জ্বরের রোগী বেপাত্তা হাসপাতাল থেকে, ব্যাখ্যা নেই কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশের কাছে!
  9. বিজেপি প্রার্থী লকেট চ্যাটার্জির ব্যান্ডেলের বাড়িতে দুষ্কৃতী হামলা!
  10. ভাতারে কবর থেকে এক শিশু কন্যার দেহ উদ্ধার করছে পুলিশ
news-details
Siliguri

লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূল এবং বিজেপি বিরোধী শক্তিকে এক করার ডাক দিয়ে কিসের ইঙ্গিত দিলেন সিপিএম নেতা অশোক ভট্টাচার্য??

শিলিগুড়ি, ০২ ফেব্রুয়ারি: একেই বলে দুর্দিন! ১৯৫৭ সাল থেকে পাহাড় এবং সমতলে একছত্র আধিপত্য ছিল লাল পার্টির। সেবার প্রথম সাংসদ হয়েছিলেন রতন লাল ব্রাহ্মণ। সেবার তিনি অবশ্য কংগ্রেস এর প্রতীকে ভোটে দাঁড়িয়েছিলেন। এরপর ১৯৫৭ থেকে ৭৭ পর্যন্ত ৫ বার লোকসভা ভোটে লাল পার্টিকেই বেছে নিয়েছিলেন পাহাড় এবং সমতলের জনতা। জনতা এবং লাল পার্টির সম্পর্কে ছেদ পড়ে ২০০৬ সালে। এরপর সেখানে পদ্মের রমরমা শুরু হয়। ২০০৪সালে বিজেপির তৎকালীন কেন্দ্রীয় নেতা যশবন্ত সিংহকে প্রার্থী করে মাস্টার স্ট্রোক দিয়েছিল বিজেপি। এরপর আর প্রথম সারিতে লাল পার্টির কেউই পাহাড় এবং সমতলে দাঁত ফোঁটাতে পারেননি। 
দলের দুর্দশা গত লোকসভা ভোটের ফলাফলেই প্রকাশ্যে এসে গিয়েছিল। দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের বিজয়ী প্রার্থী সুরেন্দ্র সিংহ আলুওয়ালিয়ার সঙ্গে সিপিএমের প্রার্থী জিবেশ সরকারের ভোটের ব্যবধান ছিল ৩লক্ষ ২১হাজার ৭১ ভোটের। গত লোকসভা ভোটে সিপিএম প্রার্থীর ৩নম্বর স্থান নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। 
এরপর ৫বছর অতিক্রান্ত হয়েছে। তিস্তা, মহানন্দা দিয়ে অনেক জল গড়ালেও পাহাড় এবং সমতলে লাল পার্টির জমি উদ্ধার তো দূরের কথা। সেখানে জনসমর্থন কার্যত তলানিতে এসে পৌঁছেছে। 
বিষয়টা নিয়ে পার্টি বৈঠকেও বেশ কয়েক দফায় আলোচনা হয়েছে। এরপরই সিদ্ধান্ত হয়, পার্টির প্রতীক হোক বা না হোক, ভোটে কাউকে দাঁড় করাতেই হবে। কেন্দ্রীয় রাজনীতি যে দিকে এগোচ্ছে, তাতে বিজেপি বিরোধী শক্তি এক জোট হচ্ছে তা পরিষ্কার। সেই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে সিপিএম, কংগ্রেসে জোট হচ্ছেই তা অন্তত পরিষ্কার। বিষয়টা বুঝেই লোকসভা ভোটের আগে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির সঙ্গে সমদুরত্বের কথা ঘোষণা করলেন উত্তরবঙ্গে সিপিএমের মুখ তথা শিলিগুড়ির মেয়র অশোকবাবু। 
সিপিএমের একটি অংশের মতে, পার্টি ফান্ডের অবস্থা ক্ষমতা থেকে অপসারিত হওয়ার পর থেকেই "ভাঁড়ের মা ভবানী অবস্থা।" লোকসভা ভোটে দলের কাউকে প্রার্থী করা হলে যে আর্থিক খরচ হবে তা এই মুহূর্তে দলের তহবিলে নেই বললেই চলে। এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেস প্রার্থী দিলে তাকে সমর্থন করার বিষয়টি ইতি মধ্যেই দলীয় বৈঠকে একরকম সিদ্ধান্ত হয়ে গিয়েছে। 
কাজেই অশোকবাবু তৃণমূল এবং বিজেপির সঙ্গে সমদুরত্ব রেখে অন্য দলের প্রার্থী কে সমর্থন করার কথা বলে, শ্যাম এবং কূল দুইই রাখার চেষ্টা করলেন। তা কিন্তু বলাই যায়। 
আপনারা কি বলেন??

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.