Top Stories
  1. বাড়ি এলেও কথা বললেন না যোগীঃ মুখ্যমন্ত্রী এড়িয়ে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ শহীদের স্ত্রী
  2. কলকাতার নতুন পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা 
  3. সাংসদ হিসাবে পাওয়া ৩ মাসের বেতন সেনা তহবিলে দান করলেন যুব তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।
  4. চলে গেলেন সঙ্গীতশিল্পী প্রতীক চৌধুরী
  5. বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ উত্তরবঙ্গের শিল্পপতিদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিলেন।
  6. পথ দুর্ঘটনায় মৃত দুই
  7. যেকোনো মুহূর্তে ফের পুলওয়ামা হামলার মতো ঘটনা ঘটাতে পারে জইশ-ই-মহম্মদ
  8. ফের প্রমাণ দিল সেই কাশ্মীর,তবে নাশকতায় নয়,সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে চেয়ে পরীক্ষা দিলেন ২৫০০ কাশ্মীরি যুবক।
  9. স্থায়ী ফুল বাজারের দাবি তুলল শিলিগুড়ি হর্টিকালচারাল সোসাইটি
  10. গুজবের জের। এক যুবককে গাছে বেধে মারধোর গ্রামবাসিদের
news-details
Nation

আবার নৃশংসতা অসমে, বাংলার দুই শ্রমিকের গলার নলি কেটে খুন , হাত কেটে ফেলা আরও দুজনের 

 

নিজস্ব সংবাদদাতা,১০ ফেব্রুয়ারি : কয়েকমাস আগের স্মৃতির ভয়াবহতাই যেন ফিরে এল অসমে । সেবার গুলি করে খুন করা হয়েছিল বেশ কয়েকজন অসমে বসবাসকারী বাঙালি নাগরিককে । আর এবার পশ্চিমবাংলা থেকে কাজ করতে যাওয়া দুই শ্রমিকের গলার নলি কেটে খুন করা হল। পাশাপাশি আরও দুই শ্রমিকের হাত কেটে ফেলা হয়েছে । আগের ঘটনায় 'রাস্ট্রীয় নাগরিক পঞ্জি' ও উগ্রপন্থীদের হত্যার কারন হিসাবে অভিযুক্ত করা হলেও এবার এখনও অবধি অন্ধকারে প্রশাসন । 
 ঘটনা শনিবার রাতে , অসমের দুমদুম থানা এলাকায় । নিহত দুই রাজমিস্ত্রীর বাড়ি পুর্ব মেদিনীপুর জেলার থানা এলাকার । মৃতরা হল গোপালনগরের বাসিন্দা সেক ইদ্রিশ আলি (৫২) এবং গড় পুরুষোত্তমপুরের বাসিন্দা সেক মহম্মদ (৪৫)।
 জানা গেছে তাঁদের বাঁচাতে গিয়ে দুই ব্যক্তির হাত কেটে দিয়েছে দুষ্কৃতীরা। তাঁরা হল পাঁশকুড়া পুরসভার ১৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সেক সোনা ও সেক জহর। এই মুহূর্তে তাঁরা গুরুতর জখম অবস্থায় অসমের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
   পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার ভি. সোলেমান নেশাকুমার জানিয়েছেন, অসম থেকে গতরাতে তাঁদের ফোন করে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তাঁরাও এরপর মৃত ও আহতদের পরিবারকে খবরটি জানিয়েছেন।
  তবে কিভাবে বা কেন খুন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এখনই বিষয়টি নিয়ে কোনও প্রকৃত কারণ প্রকাশ্যে আসেনি বলে পুলিশ সুপার জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে মৃতদেহগুলিকে ফিরিয়ে আনার জন্য সমস্ত রকম সহযোগিতা করা হচ্ছে।
এই চারজনই স্থানীয় এক  ঠিকাদার সেক হাবিবুরের হাত ধরে মাস দেড়েক আগে অসমে রাজমিস্ত্রীর কাজ করতে গিয়েছিলেন পাঁশকুড়া থানা এলাকার ৪ জন বাসিন্দা।
ওই ঠিকাদার জানিয়েছন, গত রাতে কাজ থেকে ফিরে আসার পর রাস্তার পাশের একটি দোকানের ভেতরে মাংস রান্না করছিল সেক ইদ্রিশ ও সেক মহম্মদ। সেই সময় কয়েকজন যুবক এসে তাঁদের মাংস রান্না বন্ধ করতে বলে। কিন্তু তাঁরা কোথা না শোনায় শুরু হয় বচসা।
  এরপরেই দুষ্কৃতীরা দোকানের ভেতরে ঢুকে গিয়ে দু'জনকে টেনে হিঁচড়ে কিছুটা নিয়ে গিয়ে তাঁদের গলার নলি কেটে খুন করে। এই সময় তাঁদের দুই সঙ্গী দুষ্কৃতীদের বাধ দিতে চেষ্টা করলে তাঁদেরও হাত কেটে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দুমদুম থানার পুলিশ।
তাঁরাই আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়েছে। সেই সঙ্গে মৃতদেহদুটিকে উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। তবে কে বা কারা এই নৃশংস কান্ডের সঙ্গে জড়িত তা এখনও পরিষ্কার হয়নি বলে পুলিশ সুত্রে জানানো হয়েছে।
গোটা ঘটনায় এলাকায় একদিকে আতংক ও অন্যদিকে শোকের ছায়া 

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.