Top Stories
  1. লুচি আলুর দমের পর ' ভারত মাতার জয়' , সব্যসাচীকে ঘিরে সন্দেহ দানা বাঁধছে তৃণমূলের অন্দরেই
  2. বিজেপির ২৭টি আসনে প্রার্থী ঘোষণা হতে পারে আজ।
  3. তিন সহকর্মীকে গুলিতে ঝাঁঝরা করে, আত্মহত্যার চেষ্টা জওয়ানের 
  4. লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থী বাছতে বিজেপি দফতরে মধ্য রাত পেরিয়ে গেল মোদী- শাহের
  5. আদিবাসী বলয়ে অর্জুনেই কি ভরশা রাখছেন বিজেপি নেতৃত্ব?
  6. পাঁচ হাজারে লিড দিলেই এক কোটির কাজ?উঠছে প্রশ্ন
  7. উত্তর-পুর্বে জোর ধাক্কা খেল  বিজেপি, দল ছাড়লেন ২ মন্ত্রী, ৬ বিধায়ক 
  8. সাতসকালে মোবাইল হাত সাফাই করতে গিয়ে  উত্তম মধ্যম পেল পকেটমার
  9. ভোটের মুখে পুলিশের জালে আন্তঃরাজ্য অস্ত্র কারবারি 
  10. বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে গেল গরু ছাগল সহ বাসগৃহ
news-details
Nation

চুরি যায়নি রাফালের নথি, ভোল পাল্টালেন  বেনুগোপাল, আবারও দৃঢ় হল অস্বচ্ছতার তত্ত্ব 

 

নিজস্ব সংবাদদাতা,০৯ই মার্চ: রাফাল নিয়ে কিছু কি লুকোতে চাইছে সরকার? সত্যি কি ডাল মে কুছ কালা হ্যায় ? এই প্রশ্ন বারবার ঘোরা ফেরা করছে । শুক্রবার অ্যার্টনি জেনারেল কে কে বেনুগোপালের দাবি, প্রতিরক্ষামন্ত্রক থেকে কোনও নথি চুরি যায়নি৷ বরং তিনি বলতে চেয়েছিলেন পিটিশনার রাফাল নথির ফটোকপি ব্যবহার করেছেন৷

 

অথচ ৪৮ ঘন্টা আগেই এই অ্যার্টনি জেনারেল রাফাল মামলার শুনানির সময় বুধবার সুপ্রিম কোর্টকে বলেছিলেন, রাফাল নথি চুরি হয়ে গিয়েছে৷ সেই চুরি যাওয়া নথিকে আদালত প্রামাণ্য নথি হিসাবে পেশ করেছে৷ তাই সেই নথি যেন আদালত বিচার্যের মধ্যে না আনে৷ অ্যার্টনি জেনারেলের এই মন্তব্যের বিরোধীতা করে প্রধানবিচারপতির বেঞ্চ জানিয়ে দেয় নথি যদি গুরুত্বপূর্ণ হয় তাহলে তা বিবেচিত করা হবে৷ আগামী ১৪ মার্চ ফের এই মামলার শুনানি হবে৷

সুপ্রিম কোর্টে খোদ মোদী সরকারের এই চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি বিরোধীদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছে৷ বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে নয়া স্লোগান তোলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ রাহুল জানান, যেভাবে রাফাল নথি চুরি গিয়েছে তারপর গায়েব হো গয়া স্লোগানটাই সরকারের সঙ্গে মানানসই৷

 

রাফায়েল নিয়ে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়িয়ে রাহুল গান্ধী বলেন, ‘‘সরকার জানিয়েছে (রাফাল) নথি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না৷ তার মানে সেই নথি খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল৷ সেই নথিতে বলা ছিল প্রধানমন্ত্রী মোদী রাফাল নিয়ে সমান্তরাল আলোচনা চালাচ্ছিলেন৷ যারা নথি চুরি করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা অবশ্যই নেওয়া হোক৷ তাহলে সমান্তরাল আলোচনা চালানোর জন্য প্রধানমন্ত্রীর অফিসের বিরুদ্ধে তদন্ত হোক৷’’

 

রাহুল আরও জানান, প্রধানমন্ত্রী মোদী রাফাল চুক্তি নিয়ে বাইপাস সার্জারি চালিয়েছেন৷ অনিল আম্বানিকে সুবিধা পাইয়ে দিতে রাফায়েল কিনতে এত বিলম্ব করা হয়েছে৷ তাঁর প্রশ্ন, প্রধানমন্ত্রী যদি দোষী না হন তাহলে তদন্তের নির্দেশ দিচ্ছেন না কেন? মোদীকে আক্রমণ করে রাহুল বলেন, ‘‘ওই নথিতে লেখা ছিল রাফালের দাম বাড়ানো হয়েছিল৷ প্রতিরক্ষামন্ত্রক থেকে বলা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর অফিস সমান্তরাল আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে৷ তারা এই অভিযোগ তুলল কেন? নিশ্চয়ই কোনও কারণ আছে৷’’

রাফাল নিয়ে সরকারের এই ডিগবাজি নতুন নয়। এর আগে সমস্ত নথি আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে এমন দাবী করে সুপ্রিম কোর্ট থেকে ছাড়পত্র আদায় করে নেয় সরকার । পরক্ষনেই হলফনামা দিয়ে ভুল স্বীকার করে বলা হয় সব তথ্য দেওয়া হয়েছে বলে যেটা সরকারের তরফে বলা হয়েছিল সেটা ভুল । কিছু তথ্য বাকি থেকে গেছে । 

আইনজীবীদের মত বারংবার এই ইচ্ছাকৃত ভুল করে সরকার আসলে রাফাল সংক্রান্ত আলোচনাকে বন্ধ করতে চাইছে কারন সুপ্রিম কোর্টে শুনানি চললে তা দেশ জুড়ে আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়াবে  আর নির্বাচনের আগে তা অস্বস্তিতে ফেলবে মোদী সরকারকে ।

 

 

 

 

ইন্টারনেট চিত্র।

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.