Top Stories
  1. বান্ধবীর সাথে ঘুরতে গিয়ে ধর্ষিতা কিশোরী!
  2. 'ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি' দেবের এমনটাই অবস্থা'র কথা জানালেন বিজেপি নেত্রী রূপা গাঙ্গুলি!
  3. লোকসভা ভোটের আগে জয়নগরে তৃণমুলের বিপর্যয়, রাতারাতি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান!
  4. রাত পোহালেই তৃতীয় দফা ভোট, কর্মীদের ব্যস্ততা তুঙ্গে
  5.  চুরির দায়ে শ্রীঘরে  ভুয়া সন্ন্যাসী।  
  6. সম্পত্তি বিবাদ, মাকে পিটিয়ে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দিয়ে ফেরার ছেলে, গ্রেপ্তার পুত্রবধু
  7. গন্ডারের খড়্গ  নয় পায়ের হাড়  পাচার করতে গিয়ে গ্রেপ্তার ২ যুবক
  8. গাড়ির সঙ্গে বাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত্যু এক যুবকের, গুরুতর আহত ১!
  9. তৃণমূলের যুবরাজের  হেলিপ্যাড নামাতে নিধন প্রাচীন অশ্বত্থ গাছ ! সিভিজিলে অভিযোগ সিপিআইএমের। 
  10. পরিবহন দপ্তরের কর্মীদের কীর্তিকলাপ,অফিসে বসেই দেদার মদ্যপান, ভাইরাল ভিডিও
news-details
Nation

বেআইনী অর্থলগ্নি সংস্থা রুখতে আইন আনতে চলেছে কেন্দ্র 

বেআইনী অর্থলগ্নি সংস্থা রুখতে আইন আনতে চলেছে কেন্দ্র 

নিজস্ব সংবাদদাতা : লক্ষ লক্ষ মানুষের সর্বশান্ত আর হাজার হাজার কোটি টাকা গায়েব হয়ে যাওয়ার মধ্যেও স্বস্তির খবর । বেআইনী অর্থলগ্নি সংস্থা বা পঞ্জি স্কিম অথবা চিটফান্ড রুখতে আইন আনল মোদী সরকার । বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিলমোহর পেল চিটফান্ড বন্ধ করার আইন। ওই মন্ত্রিসভার অর্থবিষয়ক কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। এর জন্য নতুন বিলও আনা হচ্ছে সংসদে। ‘ব্যানিং অফ আনরেগুলেটেড ডিপোজিট স্কিম বিল ২০১৮’— নামে ওই বিলটি সংসদের চলতি অধিবেশনেই পেশ করা হবে।

কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকার অনুমোদিত ক্ষুদ্র অর্থলগ্নি সংস্থাগুলির একটি অনলাইন ডেটাবেস তৈরি করবে। সেই তালিকার বাইরে কোনও সংস্থা বৈধ বলে গণ্য হবে না। যদি কোনও প্রতিষ্ঠান বিজ্ঞাপন দিয়ে সাধারণ মানুষের থেকে টাকা জমা নেওয়ার উদ্যোগ নেয় তবে তাদের বিরুদ্ধে প্রস্তাবিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ওই প্রতিষ্ঠানের কর্তাদের গ্রেফতার করা হবে।

এখানেই শেষ নয়, যদি কোনও সেলিব্রিটি এই ধরনের প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাস্যাডর হন, তা হলে তাঁর বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া যাবে। এমনকী গ্রেফতার করা হতে পারে। ওই সংস্থার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ও বিক্রি করে আমানতকারীদের টাকা ফেরত দেওয়া হবে।

এখন দেশে বহু ক্ষুদ্র অর্থলগ্নি সংস্থা রয়েছে। এর অনেকগুলিই সরকারের নিয়ম মেনে কাজ করে। তাদের বন্ধ করা হবে না বলেও জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী। তবে সব প্রতিষ্ঠানের উপরেই কঠোর নিয়ন্ত্রণ থাকবে।
উল্লেখ্য এই চিটফান্ড বিরোধী কেন্দ্রীয় আইন না থাকার জন্যই বহু রাজ্য সরকার চাইলেও রুখতে পারেনি চিটফান্ড সংস্থাগুলিকে । সারদা , রোজভ্যালির মত সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে আইন প্রনয়ন করার অনুরোধ জানিয়ে রাজ্যের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অসীম দাসগুপ্ত বারংবার চিঠি লিখেছিলেন কেন্দ্রকে ।

You can share this post!

Comments System WIDGET PACK

Download Our Android App from Play Store and Get Updated News Instantly.